রক্তদানের উপকারিতা | Benefits of Blood Donation - RoktoGhor.Com

রক্তদানের উপকারিতা | Benefits of Blood Donation

চার বছর ধরে ১২০০ লোকের উপর গবেষণা করে দেখা যায় যে , বিশেষ করে ফুসফুস ক্যান্সার , লিভার ক্যান্সার , ব্লাড ক্যান্সার , হৃদরোগ সহ নানা প্রকার জটিল রোগ

রক্তদানের উপকারিতা | Benefits of Blood Donation | রক্তঘর.কম


রক্তদানের উপকারিতা | Benefits of Blood Donation
রক্তদানের উপকারিতা

রক্তদানের উপকারিতা :


রক্তদানের উপকারিতা আমাদের জানা প্রয়োজন । আমরা অনেকেই রক্ত দান করতে চাই না , মনসংকচে ভুগে থাকি । কেউ রক্ত দানের কথা বললে নানা অজুহাত দেখিয়ে তাকে ভোগান্তিতে ফেলে দেই । 

আমরা যদি আসলে জানতে পারি যে রক্তদানের উপকারিতা টা কি তাহলে আমরা সবাই রক্ত দানে আগ্রহী হবো বলে আমার ধারণা । একজন মানুষ হিসবে আর একজন মানুষকে সাহায্য করা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব / কর্তব্য ।

আপনি যদি জানতে চান যে রক্ত দান করলে কি হয় , রক্ত দানের উপকারিতা , রক্ত দানের প্রভাব , রক্ত দানের সামাজিক গুরুত্ব , রক্ত দানের মহত্ব , রক্ত দানের নিয়ম , রক্তদানের গুরুত্ব , তাহলে আমাদের এই লেখাটি পড়ে দেখুন । 

রক্তদান কি বা কাকে বলে :


কোনো প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ তার শরীর থেকে অন্য আরেকজনকে রক্ত দিয়ে তাকে সাহায্য করাকেই রক্তদান বলা হয় ।

রক্তদানের গুরুত্ব :


রক্তদানের গুরুত্ব অপরিসীম । রক্ত যারা দেয় তাদের সম্মান ভালোবাসা সবার উর্ধ্বে । আপনারা জানলে অবাক হবেন যে প্রতি বছরে আমাদের দেশে অনেক রক্তের প্রয়োজন হয় । আর এই রক্তের ঘটতি টা পূরণ হয় সেচ্ছায় রক্ত দান করে যারা তাদের দ্বারা । রক্তদানের উপকারিতা আমাদের সবার ই তাই জানা প্রয়োজন ।

এক গণনায় দেখা গেছে যে প্রতি বছর প্রায় ( ৬০০০০০ ) ছয় লক্ষ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন হয় । আর এই রক্তের প্রায় ৭৫% ( পঁচাত্তর শতাংশ ) ই আসে সেচ্ছাসেবী রক্তদাতাদের কাছ থেকে । তাহলে বুঝতেই পারছেন সেচ্ছাসেবী রক্তদাতাদের ভূমিকা কতখানি । 

যদি তারা রক্ত দান এ  এই ভূমিকা পালন না করতো তাহলে না জানি কত মানুষ কে অগতরে প্রাণ হারাতে হতো । কত মানুষ তার প্রিও মানুষ কে হারিয়ে ফেলতো । রক্ত দিয়ে আর একজন এর জীবন বাঁচানো টাও অনেক সওয়াব এর কাজ ধর্মীয় দিক থেকে । 

রক্তদানের উপকারিতা এর মধ্যে সর্ব প্রধান উপকারিতা হলো একজন মানুষের জীবন বাঁচানো ,, একজন মানুষের প্রিয় মানুষকে জীবন বাঁচিয়ে সবাইকে হাসি মুখি করা । 

রক্তদান করায় শরীর নতুন ভাবে রক্ত উৎপাদন করতে অগ্রসর হয় । রক্ত দান করার ৪৮ ঘন্টা বা দুই দিনের মধ্যেই রক্তদাতার শরীর আগের মত স্বাভাবিক অবস্থাতে ফিরে আসে । রক্ত দেওয়ার সাথে সাথে শরীর এ " বোন ম্যারো " নতুন করে রক্ত কণিকা উৎপাদন করতে উদ্দীপ্ত হয় । এতে শরীর এ নতুন বিশুদ্ধ রক্তের আগমন ঘটে , যা রোগ প্রতিরোধ , শারীরিক সতেজতা সহ নানারকম উপকারিতা করে থাকে । 

Read More : 




এছাড়াও রক্ত দানের দুই সপ্তাহের মধ্যে দেহে নতুন রক্ত কণিকা তৈরির প্রবণতাটা থাকে এবং এতে আমাদের বছরে ৩ (তিন) বার  রক্ত দান করতে সুযোগ করে দেয় ।

রক্তদানের উপকারিতা হিসেবে বলা যেতে পারে যে , বেশি উপকার টা রক্তদাতার ই হয়ে থাকে । নিয়মিত নিয়ম মেনে  রক্ত রক্তদানের ফলে হৃদরোগ , হার্ট এ্যাটাক সহ নানারকম রোগ এর ঝুঁকি কমে যায় । তাই রক্ত দিন এতে আপনি শারীরিক সুস্থ থাকতে পারবেন । 

এক গবেষণায় দেখা যায় যে , যারা বছরে দুইবার রক্ত দান করে থাকেন তারা ক্যান্সার এর আক্রমণ থেকে অনেক দূরে থাকেন । চার বছর ধরে ১২০০ লোকের  উপর গবেষণা করে দেখা যায় যে , বিশেষ করে ফুসফুস ক্যান্সার , লিভার ক্যান্সার , ব্লাড ক্যান্সার , হৃদরোগ সহ নানা প্রকার জটিল রোগ থেকে অন্যান্যদের  থেকে রক্তদাতারা বেশি হারে রেহাই পেয়েছেন ।  

নিয়মিত রক্তদান করায় নিজের শরীরে কোনো প্রকার রোগ ব্যাধি আছে কিনা সেটাও জানা যায় একদম বিনামূল্যে । যেমন হেপাটাইটিস বি , এইচ আইভি , সহ আরো অন্যান্য । 

অবার প্রতি পাইন্ট পরিমাণ রক্ত দানে ৬৫০ ( ছয়শ পঞ্চাশ ) ক্যালোরি শক্তি ক্ষয় হয় । যা শরীর এর ওজন কমাতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে । 

এছাড়াও ধর্মমতে রক্তদান করাও অনেক পূণ্য এবং সওয়াবের কাজ । একজন মানুষের জীবন বাঁচানো ।  আমাদের পবিত্র কুরআন শরীফ এ বলা আছে যে , 

‘ একজন মানুষের জীবন বাঁচানো সমগ্র মানব জাতির জীবন বাঁচানোর মতো মহান কাজ '

তাই রক্তদানের উপকারিতা বলে  শেষ করা যায় না । ভাইরা বোনেরা আসুন রক্ত দিয়ে অন্যের জীবন বাঁচাই । দেখবেন আপনিও অনেক সাহায্য পাবেন । ভালো থাকবেন , সুখে থাকবেন , সুস্থ থাকতে পারবেন । 

আরো পড়তে পারেন : 



Post a Comment